অপরাধ আরও জেলা রাজনীতি

গোদাগাড়ীতে পদ্মার বাঁধ নির্মানে চাঁদা দাবি ভুক্তভোগীকে মারপিট

Please follow and like us:

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার সুলতানগঞ্জ নামক স্থানে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বালু দিয়ে ডাম্পিং কাজের চাঁদা না পেয়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে। সুলতানগঞ্জে পদ্মার ভাঙ্গন ধরায় স্থানীয় বিভিন্ন দৈনিকে ফলাও করে সংবাদটি প্রকাশিত হওয়ার পর বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসে। ফলে পদ্মার ভাঙ্গন রোধের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড এর বস্তা তৈরি করে ডাম্পিং এর কাজ শুরু হয়েছে। গোদাগাড়ী মডেল থানার এজাহার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পদ্মা নদীর সুলতানগঞ্জ এলাকায় পদ্মা নদীর ভাঙ্গন এলাকায় পানি উন্নয় বোর্ডের ডাম্পিং কাজকে কেন্দ্র করে কাজী মোজাম্মেলের মাধ্যমে গত শনিবার ঠিকাদারের নিকট ১ লক্ষ টাকা চাঁদা পাইয়ে দেয়ার প্রস্তাব করে। মোজাম্মেল তাদের চাঁদার প্রস্তাবটি ঠিকাদারকে দিতে রাজী না হওয়ায় জিয়া সহ প্রায় ২০ জন উচ্ছৃঙ্খল যুবক জাহানাবাদ থেকে ঘাটপাড়া মোজাম্মেলের বাড়ীতে গিয়ে তাকে মেরে আসে। মারার পরে লাঠি সোটা উঁচিয়ে বীর দর্পে চলে যায়।

থানার এজাহার সূত্রে জানা যায়, জাহানাবাদ গ্রামের আনিসুর রহমানের ছেলে জিয়া (৩৮), মৃত হাজী আহম্মদ আলীর ছেলে আঃ খালেক (৫৫), ঘাটপাড়ার খলিলুর রহমানের ছেলে হুমায়ন কবির (৩০), জাহানাবাদ গ্রামের মৃত. হায়দার আলীর ছেলে রানা (৩৮), কোরবান আলীর ছেলে পলাশ (২৮), মৃত. ইয়াদুল্লাহ মুন্সির ছেলে রুহুল আমিন (৫০), মৃত. ফজলুর রহমানের ছেলে শাহজাহান আলী (৫৫), সায়েদ আলীর ছেলে আকবর আলী (৩০), রাসলে ৩০), মৃত. নৈয়ব আলীর ছেলে শহিদুল ইসলাম (৪০) সহ অজ্ঞাতনামা ৫/৭ জন সংঘবন্ধ হয়ে হাতে বাঁশের লাঠি সোটা, লোহার হাতুড়ী নিয়ে সোমবার বিকেল ৫ টার দিকে ভুক্তভোগী কাজী মোজাম্মেলের বাড়ী গিয়ে তার ছেলে মাসমুদুল হক (২০)সহ দু’জনকেই বাড়ীর ভিতর থেকে টেনে হেঁচড়ে বাহিরে এনে এলোপাথাড়ী মারপিট করে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। তাদের ডাক চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। ভুক্তভোগী কাজী মোজাম্মেল ও ছেলে মাসমুদুল গোদাগাড়ী ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন আছে বলে জানা যায়। চাঁদা দাবি সংক্রান্ত গোদাগাড়ী মডেল থানায় একটি মামলা হয়েছে। ঘটনার বিষয়ে এস.আই আব্দুল মান্নানের নিকট জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি হামলার বিষয়টি নিশ্চত করে  বলেন ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি আমি দেখে এসেছি, ভুক্তভোগীদের গায়ে ছিলা যখম হয়েছে। এ বিষয়ে গোদাগাড়ী মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার আব্দুল খালেকের নিকট জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন বিবাদীদের গ্রেফতার করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *